কোন খাবারে গুলো খেলে শিশুর ক্যালসিয়ামের অভাব হবে না

সন্তানের স্বাস্থ্য নিয়ে সব অভিবাবকই চিন্তায় থাকেন। শিশুকে প্রতিদিন যে খাবার দেয়া হচ্ছে তা থেকে সে পর্যাপ্ত পুষ্টি পাচ্ছে কি না এটি জানা খুব জরুরি। তার হাড়ের বৃদ্ধি ও পুষ্টির জন্য শৈশব থেকেই যত্নবান হতে হয়। প্রতিদিন কী কী খাবার তালিকায় রাখলে শিশুর কখনও ক্যালসিয়ামের অভাব হবে না জেনে নিন।

শিশুর হাড়ের সঠিক বৃদ্ধির জন্য তার খাদ্যতালিকায় রাখুন দুধ ও দুগ্ধজাত দ্রব্য। দুধের মধ্যে থাকা ক্যালসিয়াম হাড়ের ঘনত্ব বাড়ায়। শিশু না চাইলেও ওষুধের মতো দুধ খাওয়ানো উচিত বলে জানান চিকিৎসকরা। আর তা না হলে পনির, দই, ছানা, মাখন এসব রাখুন তার খাদ্যতালিকায়।

মটরশুঁটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। যা তার হাড়ের পুষ্টিতে বিশেষ সহায়ক। সাধারণত, শীতের সবজি এটি তাই শীতের নানা খাবারেই রাখুন মটরশুঁটির ছোঁয়া। শিশুকে আমন্ড বাটার খাওয়াতে পারেন। কারণ আমন্ডের মধ্যে রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম। এক-তৃতীয়াংশ কাপ আমন্ডে প্রায় ২৬৪ মিলিগ্রাম মতো ক্যালসিয়াম থাকে। এমন কি সন্তানকে দুধের সাথে আমন্ড খেতে দিতে পারেন।

সামুদ্রিক মাছ স্যামন, টুনা এ সবে প্রচুর ক্যালসিয়াম আছে। শিশুর হাড়ের বৃদ্ধির দিকে বিশেষ নজর দিতে হলে তার খাদ্যতালিকায় অবশ্যই রাখুন এ সব মাছ। মাছ দিয়ে তৈরি করতে পারেন পছন্দসই স্যান্ডউইচ ও স্ন্যাক্স। অনেক শিশুই মাছ পছন্দ করে না। এমন হলে সেই ঘাটতি কমাতে সকালের নাস্তায় ডিম দিন। তাছাড়াও দিনের যে কোন সময়ই ডিম দিতে পারেন তাকে। একটি সিদ্ধ ডিমে ৫০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম থাকে।

অনেক শিশুর মাছ-ডিমে আগ্রহ নেই। তাদের জন্য প্রতিদিন খাদ্যতালিকায় রাখুন এক গ্লাস লেবুর রস। অস্থিবিদদের মতে, ১৫০ গ্রাম কমলালেবুর রসে ৬০ মিলিগ্রাম মতো ক্যালসিয়াম থাকে। তাই শিশুর সকালের নাস্তায় রাখুন এক গ্লাস লেবুর রস।

bd-journa

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *