ঢাবি ছা’ত্রী ধ’র্ষণঃ ধ’র্ষকের নাম মজনু

রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছা’ত্রী ধ’র্ষণের ঘটনায় গ্রে’প্তার যুবককে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যা’ব) কারওয়ান বাজারে মিডিয়া সেন্টারে নেওয়া হয়েছে। সোমবার দুপুর ১টার দিকে কড়া নিরাপত্তায় তাকে সেখানে নেওয়া হয়।

বুধবার সকালে র‌্যা’বের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল সারোয়ার বিন-কাশেম বলেন, গ্রে’প্তার করা ব্যক্তির ছবি ধ’র্ষণের শিকার ছা’ত্রীকে দেখানো হয়েছে। তিনি তাকে ধ’র্ষক বলে শনাক্ত করেছেন।

এদিকে র‌্যা’বের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে, ধ’র্ষণের ঘটনায় অ’ভিযান চালিয়ে গাজীপুর থেকে মজনু নামে এক যুবককে গ্রে’প্তার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে ওই ছা’ত্রীর মোবাইল ফোন এবং একটি চার্জার পাওয়া গেছে। ভোরে তাকে ধ’র্ষণকারী হিসেবে শনাক্ত করেছেন ভিক্টিম। তার নাম মজনু, বাড়ি নোয়াখালী। সে পেশায় ফুটপাথের হকার। ওই এলাকায় হকারি করার পর রাতে আশপাশেই থাকে। ছিনতাইসহ বিভিন্ন অ’প’রাধের সাথে সে জ’ড়িত।

উল্লেখ্য গত রবিবার রাতে কুর্মিটোলা এলাকায় ধ’র্ষণের শিকার হন। তিনি বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থেকে কুর্মিটোলা বাস স্টপেজে নামেন তিনি। পরে অন্য যানবাহনের জন্য ফুটপাত ধরে হাঁটছিলেন। হঠাৎ তাকে পেছন থেকে মুখ চেপে ধরে ফুটপাতের পাশের ঝোপে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই ধ’র্ষণের শিকার হন।

পরে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। তবে তিনি ভীষণভাবে ট্রমাটাইজড। তার চিকিৎসায় সাত সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

ধ’র্ষণের শিকার ছা’ত্রী বর্তমানে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন আছেন।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *