দোয়ার ১০ আদব

মানবজীবনের সকল অপরিহার্য অনুষঙ্গ বিষয়াদি আল্লাহ তায়ালাই পুরা করে থাকেন। আমাদের পার্থিব পরলোকিক জীবনের সকল চাওয়া-পাওয়া একমাত্র আল্লাহ তাআলার কাছে। তাই আমরা আমাদের সমস্ত চাওয়া-পাওয়া আশা-আকাঙ্ক্ষা সবকিছুই মহান রাব্বুল আলামীনের দরবারে দোয়ার মাধ্যমে হাসিল করে থাকি।
দোয়া এমন একটি ইবাদত যা একদিকে বান্দার দীনতা, হীনতা, অক্ষমতা ও বিনয়ের প্রকাশ ঘটায়, অপরদিকে আল্লাহর বড়ত্ব, মহত্ব, সর্বব্যাপী ক্ষমতা ও দয়া-মায়ার প্রতি সুগভীর বিশ্বাস গড়ে তুলে। প্রত্যেকটি কাজের নিয়ম-শৃঙ্খলা রয়েছে। আর দোয়া একটি ইবাদত তাই এরও কিছু নিয়ম-শৃঙ্খলা আদব কানুন রয়েছে।

তাই আসুন আমরা জেনে নেই দোয়ার বিশেষ ১০টি আদব-(১) দু’হাত বুক পর্যন্ত উঠান। (আদ্দাওয়াতুল কাবির নীল বাইহাকী) (২) দু’হাতের মধ্যে কিছুটা (ফাঁকা) দূরত্ব রাখা।  (উসওয়ায়ে রসুল-ই-আকরাম)(৩) আস্তে আস্তে অর্থাৎ চুপিসারে দোয়া করা। (মুসলিম শরীফ ২ ম খন্ড  ৩৪৬) (৪) দোয়া কবুল হওয়ার বিশ্বাস নিয়ে দোয়া করা। (তিরমিজী শরীফ দ্বিতীয় খন্ড ১৮৬ পৃ:)(৫)দোয়ার আগে এবং পরে হামদ সানা এবং দুরুদ শরীফ পড়া। (তিরমিজী শরীফ,২ খণ্ড, পৃষ্ঠা -১৮৫-১৮৬)

(৬) প্রত্যেক দোয়াকে তিনবার করে চাওয়া। (তাবরানী ফীল আওসাদ,১, পৃষ্ঠা ২৬০)(৭) দোয়াতে তাড়াহুড়া না করা। (বুখারী শরীফ, খণ্ড ২, পৃষ্ঠা ৯৩৮ )
(৮) উভয় বগল উন্মুক্ত রাখুন। (বুখারী শরীফ, খণ্ড ২, পৃষ্ঠা ৯৩৮ )(৯) মোনাজাতে হাতের আঙুল এবং দু’হাতের তালু আসমানের দিকে রাখা। (মুসনাদে আহমদ খন্ড ৩, পৃষ্ঠা ১৩)(১০) তারপর দু’হাত চেহারায় ফেরানো (মোছা)। (আবু দাউদ শরীফ খন্ড ১, পৃষ্ঠা ২০৯)আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে দোয়ার আদব রক্ষা করে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করার তাওফীক দান করুক। আমীন।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *