পবিত্র হ’জে নিজ খরচে গিয়ে রাস্তায় শুয়ে আছেন আইভরি কোস্টের প্রেসিডেন্ট

ইনি হলেন আলেসানে ওয়াতারা, আইভরি কোস্টের প্রেসিডেন্ট। এবার তিনি হ’জে গেছেন। তাকে এই ভাবে রাস্তায় শুয়ে থাকতে দেখা যায়। রাষ্ট্র তাকে হ’জের খরচ দিতে চেয়েছিল তিনি নেন নাই।

সৌদি বাদশাহ তাকে অ’তিথি হিসাবে ট্রিট দিতে চেয়েছিলেন, তাও তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। উনি নিজের আয়ে, নিজের খরচে সাধারণ মানুষের মতো হ’জ করতে চেয়েছেন। আর সেটাই উনি করেছেন।

এই ছবিতে, তিনি তার সঙ্গী এবং তার জনগণ যারা নিজের টাকায় হ’জ সম্পন্ন করেছেন তাদের সাথে বিশ্রাম নিচ্ছেন। মহান আল্লাহ্‌ উনার এবং উনার সহযোগীদের হ’জ কবুল করুন। আমিন।

কাবা শরিফের গিলাফ উঁচু করার র’হস্য
ম’সজিদে হারামের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ কাবা শরিফের গিলাফ নিচের অংশ থেকে ৩ মিটার পর্যন্ত উঁচু করে দিয়েছেন। সেখানে চতুর্দিক থেকে ২ মিটার চওড়া কার্টুনের সাদা কাপড় লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। পবিত্র হ’জের মৌসুম শেষ হয়ে যাওয়ার পর কাবার গিলাফ পুনরায় ঠিক করে দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

বছরে দু’বার কাবা শরিফের গিলাফ (রমজান মাস এবং হ’জের দিন গু’লিতে) এভাবে উঁচু করে রাখা হয়। ম’সজিদে হারামের কর্তৃপক্ষ বলছে, হাজার হাজার ভিনদেশি এবং জিয়ারতকারী এই ভাবনা নিয়ে ম’ক্কা মোকাররমায় আসেন তারা যে কোনো ভাবে কাবা শরিফের গিলাফের টুকরা নিজেদের সাথে নিয়ে যেতে চান।

এ জন্য তারা জায়েজ-নাজায়েজের কোনো পরওয়া করেন না। এমনকি যারা এই চিন্তা সাথে নিয়ে আসেন তারা তাওয়াফের সময় নিজেদের সাথে ব্লেড অথবা কেচি নিয়ে আসেন। যখনই সুযোগ পেয়ে যায় তারা কাবার গিলাফের টুকরা কে’টে সাথে নিয়ে নেয়। অনেক সময় দেখা যায়, এ ধরনের কাজ সংঘবদ্ধভাবেও করা হয়।

হ’জের সময় এবং পবিত্র রমজান মাসে ম’সজিদে হারামে অন্যরকম এক পরিবেশের সৃষ্টি হয়, তখন তারা ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করে।

কাবা শরিফের গিলাফ উপরে ওঠানোর সবচেয়ে বড় কারণ এটাই; ঐ সমস্ত অজ্ঞ এবং অসচেতন মু’সল্লিদের হাত থেকে রক্ষা করা।

দ্বিতীয়ত, পরিচ্ছন্নতা। অনেক জিয়ারতকারী আছেন যারা গিলাফে চুমু খান এবং এর উপর গড়াগড়ি দেন; যে কারণে গিলাফ দ্রুত ময়লা হয়ে যায়।

তৃতীয়ত, অনেক হাজি সাহেব আছেন যারা কাবার গিলাফ ধরে টানাহেঁচড়া করেন। যে কারণে গিলাফের একপাশ ঝুলে পড়ে অন্যপাশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এবং ছিঁড়ে যাওয়ার উপক্রম হয়।

ম’সজিদে হারামের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের সেক্রেটারি ও গিলাফে কাবা কমপ্লেক্সের পরিচালক জেনারেল আহম’দ আল মানসুরি জানান, ‘এ বছর কাবা শরিফের গিলাফ ৩ মিটার উঁচু করে দেয়ার কাজে ৫০ জন অংশগ্রহণ করেছেন। হ’জ মৌসুম শেষ হওয়ার পর গিলাফ অন্যসময় যেভাবে উপর থেকে নিচ পর্যন্ত থাকে সেভাবেই রাখা হবে।

ম’সজিদে হারামের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ গিলাফ উঁচু করার ভিডিও প্রচার করেছে। নতুন গিলাফ আগামি জিলহ’জের ৯ তারিখ পরিবর্তন করে দেয়া হবে।’

সূত্র : উর্দু নিউজ.কম।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *