পৃথিবীর যেসব দেশের কোনো বিমানবন্দর নেই!

আধুনিক বিশ্বে এখনও এমন অনেক দেশ আছে যাদের কোনো বিমানবন্দর নেই। তবে তাই বলে তারা যে দেশ ভ্রমণ করেন না, সেটা কিন্তু না! তবে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম দ্রুত জনসাধারনের বাহন না থাকায় তারা খুব কাছাকাছি দেশ বা অন্য উপায় বের করে দূরের ভ্রমনগুলো সারেন। চলুন জেনে নেই তেমন কয়েকটি দেশ সম্পর্কে:লিকটেনস্টাইন:‌ দেশটির নাম শুনে বেশ অপরিচিত লাগছে, তাই না! ইউরোপের এই দেশটি সুইজারল্যান্ড এবং অস্ট্রিয়ার মধ্যে এক খণ্ডের ছোট আয়াতনের একটি দেশ। তাদের নিজস্ব বিমানবন্দর নেই। তবে তাদের একটি শহরে হেলিকপ্টার ওঠানামার জন্য হেলিপোর্ট রয়েছে। তবে তারা সুইজদের সেন্ট গ্যালেন–আলটেনহেইন এবং জার্মানদের ফ্রিয়েজরিখশাফেন নিকটতম বিমানবন্দর ব্যবহার করে থাকে।

মোনাকো:‌ পৃথিবীর দ্বিতীয় ক্ষুদ্রতম দেশ হল মোনাকো। ভৌগোলিক এলাকা ২.‌০২ কিলোমিটার। এই দেশে কোনও বিমানবন্দর নেই। নিসের কোত দ্য’‌জুর বিমানবন্দর নিকটতম।সান মারিনো:‌  এই ইউরোপিয়ান দেশটিও বেশ ছোট। ছিদ্র রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত এই দেশটির চারপাশে রয়েছে বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর দেশ ইতালি।  তবে তারাও সান মারিনোর জনগন ইতালিয়ান ফেডেরিকো ফেলিনি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ব্যবহার করে চলাচল করে।আন্ডোরা:‌  সবুজ পাহাড়, উচ্চভূমির সু্ন্দর একটি দেশ। ছোট্ট এই ইউরোপিয়ান দেশের সীমানার পাশের দেশ হলো স্পেন আর ফ্রান্স। ওই দুই দেশের বিমানবন্দরই ব্যবহার করেন এখানকার নাগরিকরা।

ভাটিকান সিটি:‌ ই্উরোপের অন্যতম দেশ ও বিশ্বের অন্যতম ক্ষুদ্র দেশ ভাটিকান সিটিরও নিজস্ব বিমানবন্দর নেই। তবে হেলিকপ্টারের জন্য রয়েছে নিজস্ব পোর্ট। বিশ্বের অন্যতম গুরুত্ববহ এই দেশটির লোকজন অবশ্য ইতালির রোম সিয়ামপিনো বিমানবন্দর ব্যবহার করে।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *