ফ্রান্সে গরুর চামড়ার মাদুর নিয়ে বিতর্ক

ফ্রান্সের ফ্যাশন কোম্পানির ইয়োগা বা যোগব্যায়ামের মাদুর তৈরিতে গরুর চামড়া ব্যবহার করায় প্রবল আপত্তি জানিয়েছে হিন্দু ধর্মীয় নেতারা। বিষয়টি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের শামিল বলে ওই প্রতিষ্ঠানটিকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে তারা।গত অক্টোবর মাসে ফ্রান্সের লুই ভুইতুন কোম্পানিটি যোগব্যায়াম করার একটি মাদুর বাজারে আনে। সেই মাদুর তৈরিতে গরুর চামড়া ব্যবহার করে হয়েছে বলে জানা গেছে। গরুর চামড়া ব্যবহারের বিষয়টিকে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য ‘বেদনাদায়ক’ বলে মন্তব্য করেছেন সার্বজনীন হিন্দু সোসাইটির সভাপতি রাজন জেড। কেননা হিন্দু ধর্মে গরুকে দেবতা হিসাবে দেখা হয়।

বার্তা সংস্থা এপিকে রাজন বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানটির এমন কোনো ব্যবসা করা উচিত নয় যা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে, কোনো সম্প্রদায়কে আঘাত দেয় বা কোনো আধ্যাত্মিক চর্চাকে হাস্যরসে পরিণত করে।’ব্যবসা করার ক্ষেত্রে নৈতিক ও সামাজিক দায়বদ্ধতার বিষয়টি বিবেচনায় রাখা উচিত বলে মনে করেন এই ধর্মীয় নেতা। তাই তিনি প্রতিষ্ঠানটিকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি আসেনি।

তবে এটাই প্রথম নয়! কিছুদিন আগে হিন্দু দেবতা ব্রহ্মার নামানুসারে বিয়ারের নামকরণ করে সমালোচনার মুখে পড়েছিল বেলজিয়ামের একটি প্রতিষ্ঠান। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠান হিন্দু দেবতা গনেশের ছবিসহ একটি তোয়ালে বাজারে এনেছিল।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *