বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ সাকিব

নতুন বছরের শুরুতেই কেন্দ্রীয় চুক্তি চূড়ান্ত করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। চুক্তিতে কারা থাকছেন তা চূড়ান্ত না হলেও সাকিব যে থাকছেন না সেটি চূড়ান্ত। তবে সাকিব বাদ পড়লেও নতুন চুক্তিতে থাকছেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি। আগামী ১২ জানুয়ারি বিসিবির বোর্ড সভায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গেছে। সভায় ২০২০ সালের কেন্দ্রীয় চুক্তিও চূড়ান্ত হবে।

গেলো বছর আইসিসি সাকিবকে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা দেয়। অভিযোগ ছিলো জুয়াড়ির প্রস্তাব সম্পর্কে আইসিসি কিংবা বিসিবিকে অবহিত করেননি বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। নিষেধাজ্ঞা দুই বছরের হলেও কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে সাকিবকে, যা মেনে চললে তার শাস্তি কমে এক বছরের হবে। সেই শাস্তি এক বছরের হলেও সাকিবের ক্রিকেট মাঠে ফিরতে লাগবে আরো ৯ মাস। আগামি অক্টোবরে সাকিবের যখন ফেরার সময় হবে ততদিনে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষ বা প্রায় শেষ পর্যায়ে থাকবে। এ টুর্নামেন্টে তার খেলা প্রায় অনিশ্চিত। সেটি হলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাকিবের ফিরতে ফিরতে ডিসেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ হয়ে যেতে পারে। এ বছরের বেশির ভাগ সময়ই যেহেতু নিষিদ্ধ থাকবেন, বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে তার থাকার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

অন্যদিকে, বিশ্বকাপের পর থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে রয়েছেন দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশ খেলেছে মাত্র ৩টি ওয়ানডে। এ বছরও মাত্র ৯টি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। এছাড়া মাশরাফির অবসর নিয়ে গুঞ্জন অনেক দিন ধরে। তবে অবসরের ব্যাপারে মাশরাফিও এখন পর্যন্ত পরিষ্কারভাবে কিছু জানায়নি। তাই তাকে রেখেই নতুন চুক্তি চূড়ান্ত করার কথা ভাবছে বিসিবি।

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান চুক্তির ব্যাপারে বলেন, ‘সাকিব যেহেতু নিষিদ্ধ, কেন্দ্রীয় চুক্তিতে তার থাকার বিষয় নেই। আর মাশরাফির থাকা না থাকা তার ওপরই নির্ভর করছে।’

প্রসঙ্গত, বিসিবির আগের চুক্তিতে ছিল ১৭ জন ক্রিকেটার। এ প্লাস ক্যাটাগরিতে ছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ। এ ক্যাটাগরিতে ছিলেন ইমরুল কায়েস, রুবেল হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান। বি ক্যাটাগরিতে মুমিনুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম ও লিটন দাস। এছাড়া রুকি ক্যাটাগরিতে ছিলেন আবু হায়দার রনি, সাইফউদ্দিন, নাঈম, জায়েদ ও খালেদ।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *