মেলানিয়া ডিভোর্স দিচ্ছেন ট্রাম্পকে

সময়টা মোটেই ভালো যাচ্ছে না ডোনাল্ড ট্রাম্পের। নির্বাচনে হেরে বিদায় নিতে চলেছেন প্রেসিডেন্ট পদ থেকে। এর সঙ্গে আরও এক দুসংবাদ আসতে যাচ্ছে তার জন্য। রবিবার এমন তথ্য দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল।ডেইলি মেইল নিজেদের ওই প্রতিবেদনে ট্রাম্প প্রশাসনের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার বরাত দিয়েছে। ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, যে কোনো দিনই বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশ পাঠাতে পারেন বিদায়ী ফাস্ট লেডি।উল্লেখ্য, ওই কর্মকর্তা মেলানিয়া ট্রাম্পের সঙ্গে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন অতীতে। ওই কর্মকর্তার দাবি ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার স্ত্রীর সম্পর্ক মোটেও ভালো নয়। দীর্ঘদিন ধরেই সম্পর্কে ফাটল ধরেছে তাদের। মেলানিয়া এই নির্বাচনের ফল বের হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করছিলেন। এরপরেই তিনি তার সিদ্ধান্ত জানাবেন।মেলানিয়ার প্রাক্তন সহযোগী স্টেফনি ওয়োকঅফ ছিলেন আমেরিকার ফার্স্ট লেডির উপদেষ্টা। তিনি দাবি করেছেন হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প ও মেলানিয়া পৃথক ঘরে থাকতেন। তাদের মধ্যে সম্পর্ক ছিল শুধুমাত্রা আর্থিক লেনদেনের।এই একই তথ্য দিচ্ছেন মেলানিয়ার আরেক সহকর্মী ওমারোসা ম্যানিগল্ট নিউমান। তিনিও জানিয়েছেন, ট্রাম্প ও তার স্ত্রীর সম্পর্ক খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে রয়েছে। যে কোনো মুহূর্তে তা ভেঙে যেতে পারে।তাদের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার জন্য সঠিক সময়ের অপেক্ষা করছে মাত্র। ট্রাম্প মেলানিয়ার ১৫ বছরের বৈবাহিক সম্পর্ক শেষ হতে চলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদের আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার পরেই বলে ইঙ্গিত মিলছে।ওমারোসা নিউমান জানিয়েছেন, সময় গুণছেন মেলানিয়া, যাতে ডিভোর্স দিতে পারেন। হোয়াইট হাউস থেকে ট্রাম্প বেরোলেই তাকে ডিভোর্স দিতে চান মেলানিয়া। খবর ডেইলি মেইল।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *