সকালে কলা খাওয়ার উপকারিতা দেখে নিন।

সকালে কলা খাওয়া খুব ই উপকার যা আমার সবাই জানি আবার জানিনা মানি না ,যখন ডাক্তার কলা খাওার জন্য বলে থাকেন তখন আমারা কিছু দিন প্রতিদিন খাই আবার কিছু দিন পর ভুলে যাই,আসলে আমরা ভুলে যাই স্বাহ্য সকল সুখের মুল। আমরা তাড়া হুরো করে সকালে নাস্তাই কলা খাওয়া ভুলে যাই ,এই ভুলে যায়ার কারনে হতে পারে আমাদের স্বাহের ক্ষতি আসুন যেনে নেই কলার উপকারিতা।

সমস্ত খাবারের মধ্যে, প্রাতঃরাশকেই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধরা হয়। ফলে সকাল বেলা পুষ্টিকর উপাদানই জমিয়ে খাওয়া উচিত। তবে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই, কোনওরকমে তাড়াতাড়ি ব্রেকফাস্ট বানিয়ে কিছু একটা খেয়ে ফেলা হয় তাড়াহুড়োতে। কলা এমনই একটি ফল যা প্রাতঃরাশে প্রায় অনিবার্য। কলা কোষ্ঠকাঠিন্য, অম্বল এবং আলসার হ্রাস করে এবং শরীর ঠাণ্ডা করে। কলাতে আয়রনের পরিমাণও বেশি যা হিমোগ্লোবিন উত্পাদন বাড়ায় এবং রক্তাল্পতা নিরাময়ে সাহায্য করে। তবে কলা খালি পেটে খাওয়া নিয়ে প্রচুর তর্ক রয়েছে।

“কলা পটাসিয়াম, ফাইবার এবং ম্যাগনেসিয়ামের উত্স যা আপনার দেহের বিভিন্ন পুষ্টির প্রয়োজনীয়তা পূরণ করে। এটি শক্তি বাড়ায় এবং ক্ষিদে হ্রাস করে। প্রতিদিন কলা অবশ্যই খাওয়া উচিত।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের মতে, একটি সঠিক গুণমানের কলাতে মাত্র ৮৯ ক্যালোরি রয়েছে। এতে ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ভিটামিন বি৬ রয়েছে এবং কলায় জলের পরিমাণও বেশি ফলে কলা আপনাকে হাইড্রেটেড রাখতে সহায়তা করে।


বেঙ্গালুরুর পুষ্টিবিদ ডাঃ অঞ্জু সুদের মতে, “কলা অ্যাসিডযুক্ত এবং এতে প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম থাকে, ফলে সকালে খালি পেটে না খাওয়াই ভাল। শুকনো ফল, আপেল এবং অন্যান্য ফলের সঙ্গে তা মিশিয়ে খেলে শরীরে অ্যাসিডের পরিমাণ হ্রাস করতে সাহায্য করতে পারে।

আয়ুর্বেদের মতে, সকালে খালি পেটে ফল খাওয়া অবশ্যই এড়িয়ে চলা উচিত। আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ ডাঃ বিএন সিনহা ব্যাখ্যা করেছেন, “প্রযুক্তিগতভাবে খালি পেটে কেবল কলা নয়, যে কোনও ফলমূলই এড়ানো উচিত। আজকাল প্রাকৃতিক ফল পাওয়া শক্ত। আমরা যা কিনেছি তা কৃত্রিমভাবে জন্মেছে এবং ঠিক সকালবেলাতেই তা খাওয়া উচিত নয়। ফলে রাসায়নিক উপস্থিত থাকায় তা ক্ষতিকারক।

সকালে কলা খাওয়া খুবই ভালো, তবে তা অন্যান্য খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে। স্বাস্থ্যকর উপায়ে দিন শুরু করার জন্য বিভিন্ন উপাদানের মিশ্রণ করেই প্রাতঃরাশের পরিকল্পনা করা উচিত। তাই পরের বার যদি সকালে কলা খাওয়ার কথা ভাবেন তবে মনে করে এটি অন্য খাবারের সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার চেষ্টা করুন। কলা খাওয়ার সবচেয়ে ভাল সময়টা সকালবেলাই, বিশেষত অন্য কোনও ফল বা ওটমিলের সঙ্গে খেলে ওজন হ্রাসের জন্য তা আশ্চর্যজনক কাজ করতে পারে।

চকোলেট কলা স্মুদি- কলা, বাদাম দুধ এবং কোকো গুঁড়োর মিশ্রণে যাদু রয়েছে। মসৃণ এবং ক্রিমের মতো এই স্মুদি কেবল সুস্বাদু, পেট ভরাই নয় প্রচণ্ড স্বাস্থ্যকরও।

সব শেষে আমরা বুঝতে পারলাম কলা আমাদের স্বাহ্যের বেশ কিছু সমস্যা সমাধানের অন্যতম মাধ্যোম সকলের ই উচিত খাবার লিস্টে কলা রাখা।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *