৪০-এ আরও ভালোবাসার প্রতিশ্রুতি স্বস্তিকার

টলিগঞ্জের বং কুইন’খ্যাত লাস্যময়ী অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় জীবনের ৪০ বসন্তে পা রাখলেন। ১০৮০ সালের ১৩ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন স্বস্তিকা। তার বাবা শন্তু মুখোপাধ্যায় ছিলেন একজন অভিনেতা। ছোটপর্দায় ধারাবাহিক ‘দেবদাসী’ দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করা এ অভিনেত্রী ২০০৩ সালে প্রথমবার বড় পর্দায় আসেন। ‘হেমন্তের পাখি’ ছবি দিয়ে রুপালি পর্দায় অভিষেক হয় তার। তবে ‘মাস্তান’ ছবিতে প্রথম প্রধান চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পান তিনি। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। টলিউড পেরিয়ে বলিউডে ‘মুম্বাই কাটিং’ ছবিতেও আত্মপ্রকাশ হয় স্বস্তিকার। সবশেষ সম্প্রতি তার অভিনীত ‘পাতাললোক’ ছবিটি মুক্তি পেয়েছে।

জীবনের ৩৯ বসন্ত পেরুনো স্বস্তিকার চলার পথ এতটা মসৃণ ছিল না। নানা পথে নানা বাঁকে তাকে চলতে হয়েছে। তবু কখনও থেমে যাননি বহু ছবিতে সাহসী দৃশ্যে অভিনয় করা অভিনেত্রী। শুধু পর্দায় নয়, বাস্তব জীবনেও সাহসী স্বস্তিকা। তার বোল্ড ‘আন্দাজ’-এ ঘায়েল লাখো পুরুষ। দুই দশক ধরে টলিগঞ্জ দাপিয়ে বেড়ানো এ অভিনেত্রীর বাস্তব জীবনও বহুবার চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছে। টলিউডে ক্যারিয়ার শুরুর পর বহু তারকা কিংবা পরিচালকের সঙ্গে তার সখ্যতার গুঞ্জন ছড়িয়েছে। সৃজিত থেকে পরমব্রত এমনকি জিৎ গাঙ্গুলী- তার বহুগামিতার এ তালিকাটা বেশ দীর্ঘই বটে।

স্বস্তিকা মাত্র ১৮ বছর বয়সে গায়ক প্রমিত সেনের সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েন। দু-বছর পরই তাদের বিচ্ছেদ হয়। শুটিং সেটে নানা অভিনেতা ও পরিচালকের সঙ্গে স্বস্তিকার মাখামাখির খবর বারবারই খবরের শিরোনাম হয়েছে।

এদিকে জন্মদিনে সামাজিক মাধ্যমে বিভিন্ন ছবি পোস্ট করে সেইসব ছবির ক্যাপশনে ভালোবাসার কবিতা জুড়ে দিয়েছেন এই টলি সুন্দরী। নিজেই নিজেকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন- ‘শুভ জন্মদিন এসএম’। এসএম মানে যে স্বস্তিকা মুখার্জি সেটা বুঝতে সময় লাগেনি ভক্ত-অনুরাগীদের।
এরপরই ৪০-এ পা রাখা স্বস্তিকা প্রতিশ্রুতি দেন- ‘কথা দিচ্ছি, তোমাকে আরও ভালোবাসবো।’ সঙ্গে লালরঙা ভালোবাসার ইমোজিও যুক্ত করে দেন এ অভিনেত্রী।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *