৭০০ গোলের ক্লাবে রোনালদো!

ফুটবল খেলেছেন এমন খেলোয়াড়ের শেষ নেই। তবে দর্শকপ্রিয় বা সর্বকালের সেরা হয়েছেন হাতে ঘোনা কয়েকজন। তার মধ্যেও ৭০০ গোল করেছেন এমন আছেন মাত্র ৭ জন। সবশেষ এই ল্যান্ডমার্কে পৌঁছেছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি।

তার আগে এই ল্যান্ডমার্কে পৌঁছেছেন পর্তুগালের জুভেন্টাস সুপারস্টার ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। গত বছরের ১৩ অক্টোবর লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয় পায় রোনালদোর পর্তুগাল। সে ম্যাচে পর্তুগালের হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন সিআরসেভেন। যে গোলের মাধ্যমেই এই এলিট ক্লাবে প্রবেশ করেন তিনি।

গোলের শুরু করেছিলেন স্পোর্টিং লিসবনের হয়ে গোল করে। এই দলটির হয়ে গোল করেছিলেন ৫ গোল। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান সিআরসেভেন। ম্যানইউ’র জার্সিতে করেছেন ১১৮ গোল। পাদপ্রদীপের আলোতে আসেন এই ক্লাবটিতে খেলতে গিয়ে।

এরপর চোখ পড়ে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদের। ২০০৯ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে সরাসরি পাড়ি জমান স্পেনে। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সবচেয়ে বেশি ৪৫০ গোল করেন তিনি। নিজ দেশ পর্তুগালের জার্সিতে ৯৫ গোল। বাকী গোলগুলো করেন ইতালিয়ান জায়ান্ট জুভেন্তাসের হয়ে।

জুভেন্তাসের হয়ে এখনও খেলে যাচ্ছেন রোনালদো। গত বছর ষষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে ৭০০ গোল করেন তিনি। এরপর আরও ৩০ গোল করেছেন সিআরসেভেন। তারপরেই এই ল্যান্ডমার্কে পৌঁছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

প্রফেশনাল ক্যারিয়ার দেড় যুগের। সময়ের সাথে পোক্ত হয়েছেন, সংখ্যা বাড়িয়েছেন গোলের। ২০১০ থেকে ১৭, টানা আট বছর গোল করেছেন পঞ্চাশের বেশি। সবচেয়ে বেশি ৬৯টা ১১-১২ মৌসুমে।

ভারসাটাইল ফরওয়ার্ড বলতে যা বোঝায় রোনালদো ঠিক তাই। সবচেয়ে বেশি ৪৪৪ গোল ডান পায়ে, ১২৬টা বায়ে। হেডে গোল করেছেন ১২৮, দুইটা আবার বুক দিয়ে।

স্পোর্টিংয়ের হয়ে শুরু, তবে পাদপ্রদীপের আলোয় আসা ম্যানইউ’র জার্সিতে। রিয়ালের হয়ে এতটাই ভালো ছিলেন যে নাম লিখিয়েছেন সর্বকালের সেরাদের কাতারে। পর্তুগালকে দিয়েছেন প্রথম ইউরোর ট্রফি, প্রথম নেশন্স লিগের চ্যাম্পিয়নও বানিয়েছেন দেশকে। বয়সকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রোনালদো স্রেফ ছুটে চলেছেন। তাদের দুই জনের আগে এই ক্লাবে ডুকেছেন আর পাঁচজন।

ওই পাঁচ জনের মধ্যে একজনই ৮০০ গোলের ক্লাবে ডুকতে পেরেছেন। এ ছাড়া বাকীরা ৭০০ গোলের ক্লাবেই আটকে গেছেন। যদিও ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার পেলের গোলসংখ্যা নাকি হাজারের ওপর। তবে অফিসিয়াল পরিসংখ্যান অনুযায়ী পেলের গোল ৭৬৭। তিনি আছেন তৃতীয়তে। ৭৭২ গোল নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আসেন তার স্বদেশি রোমারিও। হাঙ্গেরির ফেরেঙ্ক পুসকাস ৭৪৬ গোল নিয়ে চতুর্থ স্থান দখল করে আছেন। পাঁচ নম্বরে থাকা জার্মানির জার্ড মুলারের গোল সংখ্যা ৭৩৫টি।

জার্মানির জার্ড মুলারের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছেন রোনালদো। মাত্র ৬ গোল করলেই এই গ্রেটকে পেছনে ফেলবেন সিআরসেভেন। তবে পেছনে আসছেন আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *