110 দিন পর খুললো কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকত

বাংলাদেশের ২য় সমুদ্র সোকত হচ্ছে কুয়াকাটা সমুদ্র সোকত । লাখো মানুসের ভির জমে আমাদের এই কুয়াকাটাইয় শিতের মোসুমে পযটক এর ভিড় জমে অনেক বিভিন্ন দেশ থেকে হাজার হাজার মানুস আসে এখানে।

মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে টানা তিন মাসেরও বেশি সময় পর্যটকদের পদভারে পর আবারও প্রাণ ফিরে পাচ্ছে কুয়াকাটা। মুখর হয়ে উঠছে সূর্যোদয়-সূর্যাস্তের অপরূপ দৃশ্য অবলোকনের এই সমুদ্রসৈকত।

টানা ১০০ দিন বন্ধ থাকার পর বুধবার (১ জুলাই) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুয়াকাটার হোটেল-মোটেল খুলে দেয়া হয়েছে।

গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুয়াকাটা হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশ কর্তৃপক্ষ।

বৈশ্বিক মহামারি নভেল করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ১০ মার্চ থেকে নয়নাভিরাম এ সমুদ্রসৈকত ১০০ দিনের জন্য পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল স্থানীয় জেলা প্রশাসন।

এর আগে গেল মে মাসের শেষ দিন থেকে সরকারিভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে সারা দেশে সব ব্যবসা-বাণিজ্য চালু হয়েছে। কোথাও কোথাও এখন চালু হচ্ছে। কিন্তু কুয়াকাটায় গত ২৩ মার্চ পুরো তিন মাসেরও বেশি সময় হোটেল-মোটেলসহ সব দোকানপাট লকডাউনের আওতায় ছিল।

হোটেল-মোটেল খোলার বিষয়ে কলাপাড়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক বলেন, ‘করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোটেল ব্যবস্থাপনা করা হচ্ছে। আর কুয়াকাটায় যেকোনও ধরনের চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।’

কুয়াকাটায় প্রায় ১২০টির মতো হোটেল-মোটেল রয়েছে। যার মধ্যে ৭০টিই অ্যাসোসিয়েশনভুক্ত। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর এবার হোটেলগুলো আবারও চালু হচ্ছে। ক্ষতি পোষাতে না পারলেও আপাতত ব্যবসায়ীদের চোখে আশার আলো ফুটছে।

এ বিষয়ে কুয়াকাটা বিচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সভাপতি পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। সেটা পোষানো হয়তো কঠিন। কিন্তু টানা তিন মাসেরও বেশি সময় পর হোটেল-মোটেল খোলায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরেছে।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *